বনাঞ্চলে আরাধনা

শাহনূর's picture
শাহনূর সোম, ২০২৪-০২-০৫ ০৪:২৩

খুব চুপি চুপি
নিঃশব্দে পা ফেলো
উদ্ভিদ পৃথিবীটা জেগে যাবে
তোমার নিঝুম শ্যামল পায়ে
জরিন সুতোর টানে
আশেপাশে অন্য কোনো মানুষের তির্যক শব্দ নাই
তাহলে না হয় খুলেই ফেলো পায়ের স্লিপার থেকে
মেঘালো চুলের ক্লিপ তক …,
কুরুবক, ঝিন্টি ফুলেরা
পাখিরা, বৃক্ষেরা, ফার্নের পাতারা
ওরা দেখুক তোমাকে জোনাকি জ্বালিয়ে,
গভীর আঁধারে তুমি সব গ্লানি মুছে দিয়ে
নির্মল করো এই মিথ্যা জীবন,
কিছুটা ক্ষণের জন্য ধন্য করো,
এনে দাও এক অন্য পৃথিবী , নৃত্য করো,
বাঁশরী বাজিয়ে
আমার সকল ভ্রান্তি এবং কালিমা দাও মুছিয়ে …
বলে দাও তুমি অন্য কেউ নও
তুমিই সেই একাধারে ধারালো খাপে ঢাকা প্রাচীন ঈশ্বরী
অন্য ধারে জলপাই পাতা দিয়ে ব্যক্তিগত ঠিকানা ঢেকে
'নগ্ন নির্জন হাত' বাড়িয়ে
তুমি গন্ধম এনে দাও নিদ্রালু অরণ্যের চোখে
মুখে, বুকে, জিভে, কন্ঠেনালি বেয়ে, ব্রহ্মতালুতে ...
আমাকে একই সাথে বিশ্বাসী এবং প্রেমিক হতে দাও
সত্য করো আমার এই আরণ্যক পৃথিবী ...

মল্লিকা রায়'s picture
শিল্প আরাধ্য হে শাহনূর আপনার

মল্লিকা রায় 3 সপ্তাহ 4 দিন আগে

শিল্প আরাধ্য হে শাহনূর আপনার পবিত্র সৃষ্টির চিরকালের জন্য অমর হয়ে রইল। এ দৃষ্টিভঙ্গী ক'জনার হয়। সবাইতো দেখে ক'জন আর এমন করে দেখতে জানে ,এমন ভাবে বলতে জানে।

হার্দিক শুভকামনা জানাই হে চিরতরুণ কবিবর।

.....

মল্লিকা রায়/Mallika Roy.

শাহনূর's picture
আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। কি জানি,

শাহনূর 3 সপ্তাহ 4 দিন আগে

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। কি জানি, অনেক দিন তো বেঁচে থাকলাম, বেশির ভাগটাই নির্বাসনে। শরীর রক্ষার্থে মাঝে মাঝে অরণ্যের পথে হাঁটি, আর মাঝে মাঝে অবান্তর অকথা কুকথা ভাবি, অমন একটা ভাবনা এলো মনে, মনেহল এই আধুনিক বিষাক্ত পৃথিবীটাকে একমাত্র নারীরাই পারবেন ধুয়ে মুছে দিতে, তাই বলতে ইচ্ছা হয়,

"তুমি, নির্মল কর, মঙ্গল করে মলিন মর্ম মুছায়ে॥
তব, পূণ্য-কিরণ দিয়ে যাক্, মোর মোহ-কালিমা ঘুচায়ে।
লক্ষ্য-শূন্য লক্ষ বাসনা ছুটিছে গভীর আঁধারে,
জানি না কখন ডুবে যাবে কোন্ অকুল-গরল-পাথারে!"

কেননা ওনারাই জন্মদাত্রী মাতা, স্নেহ ভরা আপু/দিদি, না-পাওয়া প্রেয়সী, কবুল উচ্চারিতা স্ত্রী, আদুরে কন্যা, ফের মিঠে নাতনি যে কিনা একটা কিছুতেই গলা জড়িয়ে টপাস টপাস কিস দেয়, অজান্তেই প্রবীণ জীবনটাকে বাগান বানিয়ে দেয়। এই ভাবনার কথাটা লিখতে গিয়ে যথারীতি হাবি জাবি লিখে ফেললাম, এটাই আমার সমস্যা, কলম ধরে প্রণাম করি, হে আল্লাহ্‌, হে ভগবান, হে যিশু, হে বুদ্ধ, তোমরা আমাকে ফের তার কথা লিখতে দিওনা, তবুতো কবিতাকে আকাশে উড়িয়ে দিয়ে সে চলে আসে ...
স্যরি, কতো কথা বলে ফেললাম। ভালোই হল, আপনি কোথায় যেন বলেছিলেন "আপনাকে জানতে চাই", সেটার কিছুটা ধারণা পেয়ে গেলেন।

মল্লিকা রায়'s picture
আপনাকে ভাললাগে কবি

মল্লিকা রায় 3 সপ্তাহ 4 দিন আগে

আপনাকে ভাললাগে কবি শাহনূর।শ্বেতশুভ্র গালে,একখানি উষ্ণ চুম্বন ----
শ্বেতবস্ত্রে স্বয়ং বিধাতা কি যে ভাল বেসেছি তোমায় !!

শম্পা রায়'s picture
মল্লিকাদি খুব

শম্পা রায় 3 সপ্তাহ 2 দিন আগে

মল্লিকাদি খুব সুন্দর করে বলেছেন, আমিও সহমত

সুমন্ত রাহা's picture
ইরোটিক তবুও একেবারেই ইরোটিক

সুমন্ত রাহা 3 সপ্তাহ 2 দিন আগে

ইরোটিক তবুও একেবারেই ইরোটিক নয়, পেলব ভাস্কর্যের মতো দারুণ
খুবই ভাল লাগল কবি!

সুমন্ত রাহা's picture
‘আপনার পবিত্র সৃষ্টি’ /

সুমন্ত রাহা 3 সপ্তাহ 2 দিন আগে

‘আপনার পবিত্র সৃষ্টি’ / মল্লিকাদি

বোধহয় এই একই কথা বলতে চাইছিলাম

শাহনূর's picture
@ মল্লিকা'দি

শাহনূর 3 সপ্তাহ 2 দিন আগে

Smile Smile

স্যরি আপনার বাসনা অপূর্ণই থেকে যাবে। আমি এখনো রোজ সকালে শেভ করি, এবং নীল জিন্সের প্যান্ট শার্ট পরি। যেহেতু সব ঝাকড়া চুল গুলো দ্রুত চলে যাচ্ছে, সেহেতু মাথায় একটা ফানি ক্যাপ লাগাই। আর হ্যাঁ, "পবিত্র" কাকে বলে আমি জানিনা। কোনো সুরাহ্ জানিনা, মন্ত্র স্ত্রোতম এগুলোও নয়। একটার একটু অংশ শিখেছিলাম, "জবাকুসুম সঙ্কাশ... ...", বিশ্বাস না হলে আমার মাল্কিন'কে জিজ্ঞেস করতে পারেন। উনি সব জানেন, উনি একজন সর্বংসহা ... মানে সব কিছু সহ্যকারিণী .. কিন্তু উনি কিছুই গ্রহণ করেন না।

এবার বলুন আর কতোটা জানতে চান?
খুব মজা পেলাম এতোটুকুন লিখতে! আহা আমার যদি একটা আপু থাকতো তাহলে তাকে সব খুলে মেলে বলতাম, আব্বুর পাহারা পালিয়ে তার কাছে গিয়ে পড়তাম,

"আমি যদি হই ফুল, হই ঝুঁটি-বুলবুল হাঁস
মৌমাছি হই একরাশ,
তবে আমি উড়ে যাই, বাড়ি ছেড়ে দূরে যাই,
ছেড়ে যাই ধারাপাত, দুপুরের ভূগোলের ক্লাস।

তবে আমি টুপটুপ, নীল-হ্রদে দিই ডুব রোজ
পায় না আমার কেউ খোঁজ।
তবে আমি উড়ে-উড়ে ফুলেদের পাড়া ঘুরে
মধু এনে দিই এক ভোজ।

হোক আমার এলো চুল, তবু আমি হই ফুল লাল
ভরে দিই ডালিমের ডাল।
ঘড়িতে দুপুর বাজে; বাবা ডুবে যান কাজে;
তবু আর ফুরোয় না আমার সকাল।"

শাহনূর's picture
@মল্লিকা'দি; শম্পা রায় ; সুমন্ত'জি;

শাহনূর 3 সপ্তাহ 2 দিন আগে

এখানে আপনাদের সাথে একটা পুরাতন অথচ আধুনিক কবিতা শেয়ার করতে ইচ্ছে হল। আমি জানি এটা আপনাদের অনেককেই শিহরীত এবং কম্পিত করবে, ...... আমি যদি কবি হতাম তাহলে আমি এটার শিরোনাম দিতাম "সানগ্লাস", কিন্তু এটার প্রকৃত শিরোনামটা আমার হাড় কাঁপায় ... হার মানা হার পরাবো কাহার গলে (সব শেষে সেটাও দিলাম)

---------------------------------------
'সানগ্লাস' ঢাকা দু' চোখে তোমার
অন্ধকার।
নীল কালো আর বেগুনে কাঁচের
অন্ধকার।
সেখানে সূর্য রং জ্বলা জ্বলা পাংশুটে।
সেখানে সূর্য ঘুম ঘুম আর মনমরা।
সেখানে সূর্য রাখছে না কোনো অঙ্গীকার।
সূর্যকে তুমি করছ সেখানে অস্বীকার।

সূর্যকে তুমি দেখবে না, মোটে দেখবে না।
ধারালো ছুরির ফলার মতন সূর্যকে
গলিত লোহার স্রোতের মতন সূর্যকে
চোখ ঝলসানো ঝকঝকে
শাদা সূর্যকে দেখবে না।

তবুও তোমার কাঁচের আড়াল থাকবে কি ?
থাকবে না।
নীল কালো আর বেগুনে আড়াল থাকবে না।
গোঁয়ার ঝড়ের ঘূর্ণি দাপটে ভাঙবে সে,
রোঁখা গরুড়ের পাখার ঝাপটে ভাঙবে সে ।
সামলাবে তুমি কতই আর? সাধের তোমার
অহংকারের অন্ধকার! ("তোমাকে", আশাপূর্ণা দেবী)
----------------------------------------------------------

পুনশ্চ -

"হার-মানা হার পরাব তোমার গলে।
দূরে রব কত আপন বলের ছলে।
জানি আমি জানি ভেসে যাবে অভিমান, (?)
নিবিড় ব্যথায় ফাটিয়া পড়িবে প্রাণ,
শূন্য হিয়ার বাঁশিতে বাজিবে গান,
পাষান তখন গলিবে নয়নজলে। (?)

শতদল-দল খুলে যাবে থরে থরে
লুকানো রবে না মধু চিরদিনতরে।
আকাশ জুড়িয়া চাহিবে কাহার আঁখি,
ঘরের বাহিরে নীরবে লইবে ডাকি, (?)
কিছুই সেদিন কিছুই রবে না বাকি
পরম মরণ লভিব চরণতলে।

?????????? সানগ্লাস, শুধুই "তোমাকে" ??????????

পৃথা's picture
কবিতার আবহ যেন অন্তরাত্মা

পৃথা 2 সপ্তাহ 5 দিন আগে

কবিতার আবহ যেন অন্তরাত্মা গ্রাস করে নিল
শুরু থেকে শেষ খুব চমৎকার কবিতা

সুমি's picture
কবিতার আবহ আর ভাষাতে

সুমি 2 সপ্তাহ 4 দিন আগে

কবিতার আবহ আর ভাষাতে আকণ্ঠ ডুবে গেলাম

hiya's picture
অদ্ভুদ বনাঞ্চলে !

hiya 2 সপ্তাহ 2 দিন আগে

শাহনুর, আপনার এই কবিতাটা পড়ে মনে হলো, এমন একটি কবিতার জন্য অপেক্ষায় থাকা যায় -

কবিতাটা পড়ে মনে হলো, ঠিক যেন কবির সাথে

অযুত "বছর ধরে পথ হাঁটিতেছি "
সেই অদ্ভুদ বনাঞ্চলে, সময় যেখানে নিঃশব্দ নীরব হয়ে
থেমে আছে, অসম্ভব জ্ঞানী বৃক্ষগুলি --
সৃষ্টির সমস্ত রহস্যগুলি পরিপাকে
অতিবৃদ্ধ হয়ে - স্মিত ঋষির মতো
ঈশ্বরের আঙ্গুলি হতে চায় -
এখানে আমার বিস্মৃত ঋদ্ধি
আমাকে স্থিত করে - মনে হয়
এখানে কেউ কারো কাছেতেই ঋণী নয় -
আমার অমিয়, অতি শান্ত বনতলে,
অসম্ভব অতিক্রান্তি অক্লেশে পার হয়ে
ঈশ্বরের কাছে বসে,
হাঁটু মুড়ে, জীবন কুম্ভকে পূর্ণ - করে - পূর্ণ শুধু আর কিছু নয়
- ছায়া ঢাকা বনাঞ্চলে !
হে কবি তোমার সাথে, হাঁটলাম অযুত সময় !

.....

কিছু না



নতুন মন্তব্য পাঠান

  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <b> <font color> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <small>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • You may use [inline:xx] tags to display uploaded files or images inline.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.
  • You may use <swf file="song.mp3"> to display Flash files inline