কোথাও নির্জনে

পারিজাত রায়'s picture
পারিজাত রায় বৃহ, ২০২৪-০২-০১ ২০:৩৪

কোথাও নির্জন কোনো বনে
পাতা ফিল্ট্রিত রোদের ভেতরে
দুটো সুস্মিত কাঠগোলাপ পাপড়ি যেন ভুল করে
কিছু দীঘল আলাপ ফেলে গেছে।
ওদের চিবুকের নিচে
ক্ষয়ে যাওয়া সেমিজের মতো মসৃণ ঘ্রাণে
পুরাতন লাল রঙ পাইনের বেঞ্চ
তার ফ্যাকাসে চল্টা ওঠা লোহিত রঙ মুছে ফেলে
পাশের নদীর পাড়ে পাখা মেলা ব্যালকনি খুঁজে
অহরহ তৃষ্ণা মেটাতে চায় ! একদিন নয় চির চির দিন !
এই বুঝি সেই ব্যালকনি রেলিঙে রেলিঙে মেরুন আভায়
একশত বিষণ্ণ রবিন নিজেদের করতলে নিদ্রা খুঁটে খায়,
তাই বুঝি বেরং নদীটা বরং গোলাপি-হলুদ হলো ধরাতল
থরো থরো। কেউ হয়তো এবার কারো প্রশান্ত ঝিনুক খুলে
বাঁকা আঙুলের নখ দিয়ে খুদে নেবে কারো অদেখা সব সম্ভার
বার বার প্রত্যাখ্যান হবার প্রতিশোধ নেবে
ময়ূর পুচ্ছ তুলে, তার পকেটে হরিদ্রাভ কবিতার
ভাঙা কাঁচ, অথবা কাঁচের মতন কিছু ভাঙা চাঁদ,
অথবা চাঁদের মতো এমন একটা প্রেমিক ভাঙা কবিতা
যেটার সমস্ত কিছু কেবল আঁধার।
সে এখন আলোকে আঁধার ভাবে, কালোকে আলো
মন্দকে ভালো, ভালোকে মন্দ, সাদাকে কালো, কালোকে শ্যামলা,
শ্যামলা শ্যামলী এই নদী, ছন্দময় পয়ার বাঁধুনি, এই পুরাতন বেঞ্চ, এই অরণ্যের
পরে আর কোনো কিছু নাই তার শূন্য শ্যামলী ফেঞ্চ ঘেরা অলীক আয়তনে
একমাত্র সে ছাড়া সবাই গেছে বনে ......

hiya's picture
আহা ! জাস্ট বয়ে গেলাম -

hiya 4 সপ্তাহ 1 দিন আগে

আহা ! জাস্ট বয়ে গেলাম -

"সেখানে অদ্ভুত আবহে - ধমনীর ভিতরে
শিরশিরে মোহ খেলা করে, ভালোবাসা -
অতিসান্দ্র প্রেম -অযুত ব্রহ্মান্ড হয়ে
নিযুত আলোকবর্ষে একীভূত সময়ের মেমব্রেনে
কোয়ান্টাম সংকেতে সমাবর্তনের নিজস্ব খেলা খেলে
মানুষের বস্তুবাদ, পঞ্চম ধ্রুবকগুলি আজ্ঞাবহ খানসামা হয়ে
চুপচাপ দরোজার বাইরে অলৌকিক ইন্দ্রজাল দেখে

সেখানে অনাহত নাদ লেখা হয়, স্পন্দনে - কম্পনে - শিহরণে
অনাহত কথা কয়, অনিয়মিত অবাক বিপুল তরঙ্গে -
অনাহত কথা কয় - সেখানে পরম যত্নে
সৃষ্টি কবিতা রচনা করেন - একখানি অনাহত অনন্ত কবিতা !

.....

কিছু না

অনি's picture
" কেউ হয়তো এবার কারো প্রশান্ত

অনি 4 সপ্তাহ 12 ঘন্টা আগে

" কেউ হয়তো এবার কারো প্রশান্ত ঝিনুক খুলে
বাঁকা আঙুলের নখ দিয়ে খুদে নেবে কারো অদেখা সব সম্ভার"

প্রতিটা লাইন তন্ময় করে!

বীথি's picture
আপনার এই কবিতাটিও অপূর্ব

বীথি 4 সপ্তাহ 11 ঘন্টা আগে

আপনার এই কবিতাটিও অপূর্ব হয়েছে, পারিজাতদা

হিবাস's picture
"ফিল্ট্রিত" - কেয়াবাত কয়েনেজ

হিবাস 4 সপ্তাহ 11 ঘন্টা আগে

"ফিল্ট্রিত" - কেয়াবাত কয়েনেজ !!!

হিবাস's picture
অ্য

হিবাস 4 সপ্তাহ 11 ঘন্টা আগে

অ্য

হিবাস's picture
সা

হিবাস 4 সপ্তাহ 11 ঘন্টা আগে

সা

হিবাস's picture
ম অ্যসাম কবিতা ...

হিবাস 4 সপ্তাহ 11 ঘন্টা আগে

অ্যসাম কবিতা ...

পৃথা's picture
কোনো এক রূপকথার গন্ধমাখা যেন

পৃথা 4 সপ্তাহ 9 ঘন্টা আগে

কোনো এক রূপকথার গন্ধমাখা যেন

পারিজাত রায়'s picture
@hiya, @অনি, @বীথি, @হিবাস, @পৃথা

পারিজাত রায় 4 সপ্তাহ 6 ঘন্টা আগে

আপনাদের সব্বাইকে অনেক ধন্যবাদ!

- হিয়াঃ 'স্পন্দনে - কম্পনে - শিহরণে অনাহত কথা কয়, অনিয়মিত অবাক বিপুল তরঙ্গে - অনাহত কথা কয়' কবিতাংশটা অপূর্ব!

- হিবাসঃ অর্থটা ইন্টারনেটে খুঁজে পেলাম না, ওরা সবাই 'হিসাব' দেখায়! আপনার নিবাস হয়তো অন্য কোনো গ্রহে, আমি ধরে নিলাম এটা হচ্ছে হিবিস্কাসের surname, জবা কুসুম সঙ্কাশং... দুহাত বাড়িয়ে মাথা নত করে নিলাম

- পৃথাঃ মার্কিন ভাষায় একটা slang আছে ... "Shit Happens"! This term is used as a simple existential observation that life is full of unfortunate unpredictable events, ... আমি সেটাকে ফলো করে বলবো, "রূপকথা happens", কেবল মাত্র 'unfortunate' শব্দটাকে সেন্সর করে 'fortunate' করে দিলেই কেল্লা ফতে, ওপেন সিজামে...

- অনি এবং বীথি : এমন অকবিতা পড়ে মন্তব্য দিয়েছেন বলে অনেক ঋণী করে দিলেন। পাশে থাকবেন, বেশি দিন নয়, আর কটা দিন .....................

রাজর্ষি's picture
‘সে এখন আলোকে আঁধার ভাবে,

রাজর্ষি 3 সপ্তাহ 6 দিন আগে

‘সে এখন আলোকে আঁধার ভাবে, কালোকে আলো
মন্দকে ভালো, ভালোকে মন্দ, সাদাকে কালো, কালোকে শ্যামলা,
শ্যামলা শ্যামলী এই নদী, ছন্দময় পয়ার বাঁধুনি, এই পুরাতন বেঞ্চ, এই অরণ্যের
পরে আর কোনো কিছু নাই তার শূন্য শ্যামলী ফেঞ্চ ঘেরা অলীক আয়তনে
একমাত্র সে ছাড়া সবাই গেছে বনে ......’

মোলোয়েম আর মেদুর, মনকে যেন অন্য কোনো জগতে ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে

সুমি's picture
"বাঁকা আঙুলের নখ দিয়ে খুদে

সুমি 3 সপ্তাহ 5 দিন আগে

"বাঁকা আঙুলের নখ দিয়ে খুদে নেবে কারো অদেখা সব সম্ভার
বার বার প্রত্যাখ্যান হবার প্রতিশোধ নেবে"

কাশ, প্রতিশোধ নেওয়া যেত!

নরেশ গুহ লিখেছিলেন


এক বর্ষার বৃষ্টিতে যদি মুছে যায় নাম
এত পথ হেঁটে, এত জল ঘেঁটে কী তবে হ’লাম?

এত যে সয়েছি, এত যে পেয়েছি,
দুঃখ-সুখের ধারায় নেয়েছি,
দুচোখে দেখেছি অপার্থিবের অফুরন্তের ঝর্ণা,
প্রকৃতির রীতি মানুষের ঘরকরনা :
মার কোলো শিশু ঘুমে অচেতন, চুলে বিলি দেয় হাওয়া,
একটি চুমোয় বিশ্বের সব খ্যাতি গৌরব বিত্তের স্বাদ পাওয়া,
ধিক্কারে ভরা নোংরা নরকে একটি কথার গানে
শত বার ফিরে জন্ম নেবার অভিলাষ আনে প্রাণে।
সব আশা যদি চুরমার হয়, ভাঙে ফুলদানী, ভোরের চায়ের বাটি
যে-পথে সে আর ফিরবে না, তবু আর একবার সেই পথ দিয় হাঁটি।
তৃষ্ণা মেটে না দেখে।

তবু শেষে জলে লিখে নাম
চ’লে যেতে হবে? কী তবে পেলাম, কী তবে হ’লাম?

চিরজীবীদের জয়টিকা আর অসামান্যের মাল্য
প্রতিজ্ঞা ক’রে কেটেছে একদা দেবদুর্লভ বাল্য।
ছিল না শঙ্কা, মনের কোনায় সন্দেহ ক্ষীণ।
শিশু উল্লাসে হাওয়ায়-হাওয়ায় সে আমার দিন -
রাঙা বুদ্বুদ - উড়িয়ে দিয়েছি চপল খেলায়।

আজ যৌবন খর-জীবনের মধ্য বেলায়।

এখন দেখছি কত যে স্বপ্ন কত যে ইচ্ছে
হ’লো না জীবনে পূরণ - কে তার হিশেব নিচ্ছে?
চলতে চলতে নিজেই ভুলেছি - কত না দুপুর
কালো ভ্রমরের পাখায় এনেছে বহিয়া যে সুর !
লঘু প্রহরের সে-সুর ছন্দে গাঁথার সময়
পেল না হৃদয়।

দীর্ঘ গ্রীষ্ম কেটে গেছে কত - গানের চরণ
চোখের সামনে জারুলের শাখা বেগনি বরণ
পুষ্প-প্রদীপে অপব্যয়ের যে উদাহরণ
স্থাপন করেছে, তা দেখে আমার হৃদয় জানতো -
আমারো তা হবে জারুল শাখায় যে অফুরন্ত
আমারো জীবন জারুলের মতো করবে তুচ্ছ
সকল চিহ্নঅবলেপকারী কালের ইচ্ছা
আমিও পারব এ মরদেহের ধ্বংস ভুলতে
হিমে উলঙ্গ কালের শাখায় পুচ্ছ তুলতে।

আমি তো কখনো করি নাই তাই কারো প্রতীক্ষা
হায় দুরন্ত শ্রাবণ! তুমিই দিয়েছ শিক্ষা
হৃদয় শুধুই দু'হাতে বিলাতে, ঝরাতে শুধুই।
তোমার মতোই সঞ্চয় আমি রাখিনি কিছুই।

আজ রাত্রিতে বৃষ্টি নেমেছে। একা বিছানায়,
ঘুম চোখে নেই। শুয়ে শুনি হাওয়া ডেকে-ডেকে যায়
যেন মনে হয় এই রাত্রিতে এখানে আসার
কত কাল থেকে রক্তে আমার কথা ছিলো কার।
আমাকে অমর করার মন্ত্র সে বুঝি জানতো।
সে অপার্থিব, সে অফুরন্ত।
সে যেন আমার লক্ষ্যবিহীন সকল গানের
অকুল মোহনা। সে যেন আমার অধীর প্রাণের
চির প্রতীক্ষা।

হায়, দুরন্ত উতল শ্রাবণ, তোমার শিক্ষা --
এই তো করলো!
এবার কি তবে জলে লিখে নাম
চ’লে যেতে হবে? কী তবে পেলাম! কী তবে হ’লাম!

মল্লিকা রায়'s picture
বাহ বাহ কেয়া বাতা ! নরেশ

মল্লিকা রায় 3 সপ্তাহ 4 দিন আগে

বাহ বাহ কেয়া বাতা ! নরেশ জি

এক বর্ষার বৃষ্টিতে যদি মুছে যায় নাম
এত পথ হেঁটে, এত জল ঘেটে,কি তবে হলাম
কি তবে পেলাম ?

চরম মুগ্ধ হলাম , খুব কষ্ট দু:খ হৃদয়ের ক্রন্দন

.....

মল্লিকা রায়/Mallika Roy.

মল্লিকা রায়'s picture
বার বার প্রত্যাখান হবার

মল্লিকা রায় 3 সপ্তাহ 4 দিন আগে

বার বার প্রত্যাখান হবার প্রতিশোধ নেবে -----
আমিও সবকটি ভাঙা হাড়
রেখেছি পাঁজরে, নুব্জ হয়ে আছি
ওর ফুলসজ্জা খাটে
শেষ হলে সওদাগর প্রতিশোধ নেব



নতুন মন্তব্য পাঠান

  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <b> <font color> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <small>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • You may use [inline:xx] tags to display uploaded files or images inline.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.
  • You may use <swf file="song.mp3"> to display Flash files inline